ঢাকা ০১:৩৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তিন ঘণ্টা খোলা থাকবে কলকাতার কফি হাউস

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট : ০২:৪১:৫০ অপরাহ্ন, বুধবার, ৯ জুন ২০২১
  • / 173

ছবি সংগৃহীত

::যুগের কন্ঠ ডেস্ক::
করোনাভাইরাসে একেবারেই বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে ভারত। তবে সংক্রমণ ও মৃত্যু কিছুটা কমে আসায় বিভিন্ন রাজ্যে লকডাউন শিথিল করা হয়েছে। সরকারি বিধিনিষেধ মেনে মাত্র তিন ঘণ্টার জন্য খোলা থাকবে কলকাতার কফি হাউস।

বুধবার থেকে আবারও জমে উঠতে শুরু করেছে কফি হাউসের আড্ডা। তবে থাকছে একাধিক নিষেধাজ্ঞা।

ইন্ডিয়ান কফি হাউস ওয়ার্কার্স কো-অপারেটিভ লিমিটেডের সেক্রেটারি তপন পাহাড়ি বলেন, সরকারি সব বিধিনিষেধ মেনে কফি হাউস খোলা হবে মাত্র তিন ঘণ্টার জন্য। এরপর রাজ্য সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

গতবছর প্রথমবার লকডাউনের সময় বন্ধ হয়েছিল কফি হাউস। পরে কফি হাউস খুলে দেয়া হয়। এরপর করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের কারণে আবারও বন্ধ রাখা হয়।

কফি হাউসের আড্ডা ফিরলেও অনেক কিছুতেই ব্যাপক পার্থক্য থাকছে। চিরচেনা চেহারা বেশ বদলে যাচ্ছে। কফি হাউসে আসা লোকজনকে শারীরিক দূরত্ব মানতে হবে। কমিয়ে দেয়া হয়েছে টেবিলের সংখ্যা। একাধিক মেনু বাদ দেয়া হয়েছে।

সকালের বদলে বিকালে খোলা থাকবে কফি হাউস। তাও মাত্র তিন ঘণ্টার জন্য। বিকেল পাঁচটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত খোলা থাকবে কফি হাউস।

পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্য দপ্তর জানিয়েছে, করোনা ঠেকাতে গত ১৬ মে থেকে রাজ্যে জারি করা বিধিনিষেধ কাজে আসছে। অনেকটাই নেমে এসেছে রাজ্যের দৈনিক সংক্রমণ। সঙ্গে স্বস্তি মিলেছে মৃত্যু কমায়।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

তিন ঘণ্টা খোলা থাকবে কলকাতার কফি হাউস

আপডেট : ০২:৪১:৫০ অপরাহ্ন, বুধবার, ৯ জুন ২০২১
::যুগের কন্ঠ ডেস্ক::
করোনাভাইরাসে একেবারেই বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে ভারত। তবে সংক্রমণ ও মৃত্যু কিছুটা কমে আসায় বিভিন্ন রাজ্যে লকডাউন শিথিল করা হয়েছে। সরকারি বিধিনিষেধ মেনে মাত্র তিন ঘণ্টার জন্য খোলা থাকবে কলকাতার কফি হাউস।

বুধবার থেকে আবারও জমে উঠতে শুরু করেছে কফি হাউসের আড্ডা। তবে থাকছে একাধিক নিষেধাজ্ঞা।

ইন্ডিয়ান কফি হাউস ওয়ার্কার্স কো-অপারেটিভ লিমিটেডের সেক্রেটারি তপন পাহাড়ি বলেন, সরকারি সব বিধিনিষেধ মেনে কফি হাউস খোলা হবে মাত্র তিন ঘণ্টার জন্য। এরপর রাজ্য সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

গতবছর প্রথমবার লকডাউনের সময় বন্ধ হয়েছিল কফি হাউস। পরে কফি হাউস খুলে দেয়া হয়। এরপর করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের কারণে আবারও বন্ধ রাখা হয়।

কফি হাউসের আড্ডা ফিরলেও অনেক কিছুতেই ব্যাপক পার্থক্য থাকছে। চিরচেনা চেহারা বেশ বদলে যাচ্ছে। কফি হাউসে আসা লোকজনকে শারীরিক দূরত্ব মানতে হবে। কমিয়ে দেয়া হয়েছে টেবিলের সংখ্যা। একাধিক মেনু বাদ দেয়া হয়েছে।

সকালের বদলে বিকালে খোলা থাকবে কফি হাউস। তাও মাত্র তিন ঘণ্টার জন্য। বিকেল পাঁচটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত খোলা থাকবে কফি হাউস।

পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্য দপ্তর জানিয়েছে, করোনা ঠেকাতে গত ১৬ মে থেকে রাজ্যে জারি করা বিধিনিষেধ কাজে আসছে। অনেকটাই নেমে এসেছে রাজ্যের দৈনিক সংক্রমণ। সঙ্গে স্বস্তি মিলেছে মৃত্যু কমায়।