ঢাকা ০৫:৩৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুম্বাইয়ে ভারি বর্ষণে ভবন ধসে ২০ জনের মৃত্যু

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট : ০১:০২:০৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ জুলাই ২০২১
  • / 166

ছবি- সংগৃহীত

::আন্তর্জাতিক ডেস্ক::

ভারতের মুম্বাইয়ের চেম্বুর ও ভিখরোলি এলাকায় প্রবল বৃষ্টিতে আবাসিক দুটি ভবন ধসে ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পরে অন্তত ২০ জন মারা গেছেন।

শনিবার গভীর রাত থেকে ভোর পর্যন্ত টানা কয়েক ঘন্টা ভারি বৃষ্টির ফলে ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে। খোলা জায়গায় কোথাও না যাওয়ার জন্য জনগণকে সতর্ক করেছে কর্তৃপক্ষ। বিএসসি পৌরসভা জানিয়েছে, রোববার ভোরে ভিখরোলি এলাকায় একটি আবাসিক ভবন ধসে তিনজন মারা গেছেন।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, চেম্বুরের ভারত নগর থেকে ১৫ জন এবং ভিখরোলির সূর্য নগর এলাকা থেকে ৯ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। তারা আরও জানিয়েছেন, আহতদের চিকিৎসা দেয়ার জন্য নিকটস্থ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ধ্বংসস্তূপের মধ্যে আরও অনেক মানুষ আটকা পড়ে থাকার সন্দেহে দুই এলাকাতেই উদ্ধার অভিযান অব্যাহত আছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বন্যায় প্রাণহানির জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন এবং মৃতদের পরিবারকে দুই লাখ রুপি ও আহতদের ৫০ হাজার রুপি দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

মুম্বাইতে শনিবার সন্ধ্যা ৮ থেকে রোববার ভোর ৮টা পর্যন্ত ১৭৬.৯৬ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে। যার মধ্যে শহরের পূর্বাংশে ২০৪.০৭ এবং পশ্চিমাংশে ১৯৫.৪৮ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে। এমন ভারি বৃষ্টিপাতের কারণে মুম্বায়ের নিম্নাঞ্চল চুনাভট্টি, সায়ন, দাদার এবং গান্ধী মার্কেট, চেম্বুর ও কুরলা এলবিএস এলাকায় বন্যা দেখা দিয়েছে।

বার্তা সংস্থা এএনআই’র এক ভিডিওতে দেখা গেছে বোরিভালীর পূর্ব এলাকায় স্রোতে অনেক গাড়ি ভেসে যাচ্ছে। সারারাত বৃষ্টির কারণে জলাবদ্ধতা তৈরি হওয়ায় শহরতলীর ট্রেন পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলিতে ট্রেনলাইনের ওপর জলাবদ্ধতা তৈরি হওয়ায় সিএসএমটি এবং থানের প্রধান লাইন বন্ধ করা হয়েছে। ভারতের আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, মুম্বাইতে আরও ৫ দিন ভারী বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

মুম্বাইয়ে ভারি বর্ষণে ভবন ধসে ২০ জনের মৃত্যু

আপডেট : ০১:০২:০৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ জুলাই ২০২১
::আন্তর্জাতিক ডেস্ক::

ভারতের মুম্বাইয়ের চেম্বুর ও ভিখরোলি এলাকায় প্রবল বৃষ্টিতে আবাসিক দুটি ভবন ধসে ধ্বংসস্তূপের নিচে চাপা পরে অন্তত ২০ জন মারা গেছেন।

শনিবার গভীর রাত থেকে ভোর পর্যন্ত টানা কয়েক ঘন্টা ভারি বৃষ্টির ফলে ভূমিধসের ঘটনা ঘটেছে। খোলা জায়গায় কোথাও না যাওয়ার জন্য জনগণকে সতর্ক করেছে কর্তৃপক্ষ। বিএসসি পৌরসভা জানিয়েছে, রোববার ভোরে ভিখরোলি এলাকায় একটি আবাসিক ভবন ধসে তিনজন মারা গেছেন।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, চেম্বুরের ভারত নগর থেকে ১৫ জন এবং ভিখরোলির সূর্য নগর এলাকা থেকে ৯ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। তারা আরও জানিয়েছেন, আহতদের চিকিৎসা দেয়ার জন্য নিকটস্থ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ধ্বংসস্তূপের মধ্যে আরও অনেক মানুষ আটকা পড়ে থাকার সন্দেহে দুই এলাকাতেই উদ্ধার অভিযান অব্যাহত আছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বন্যায় প্রাণহানির জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন এবং মৃতদের পরিবারকে দুই লাখ রুপি ও আহতদের ৫০ হাজার রুপি দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

মুম্বাইতে শনিবার সন্ধ্যা ৮ থেকে রোববার ভোর ৮টা পর্যন্ত ১৭৬.৯৬ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে। যার মধ্যে শহরের পূর্বাংশে ২০৪.০৭ এবং পশ্চিমাংশে ১৯৫.৪৮ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে। এমন ভারি বৃষ্টিপাতের কারণে মুম্বায়ের নিম্নাঞ্চল চুনাভট্টি, সায়ন, দাদার এবং গান্ধী মার্কেট, চেম্বুর ও কুরলা এলবিএস এলাকায় বন্যা দেখা দিয়েছে।

বার্তা সংস্থা এএনআই’র এক ভিডিওতে দেখা গেছে বোরিভালীর পূর্ব এলাকায় স্রোতে অনেক গাড়ি ভেসে যাচ্ছে। সারারাত বৃষ্টির কারণে জলাবদ্ধতা তৈরি হওয়ায় শহরতলীর ট্রেন পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলিতে ট্রেনলাইনের ওপর জলাবদ্ধতা তৈরি হওয়ায় সিএসএমটি এবং থানের প্রধান লাইন বন্ধ করা হয়েছে। ভারতের আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, মুম্বাইতে আরও ৫ দিন ভারী বৃষ্টি অব্যাহত থাকবে।