মানসিক স্বাস্থ্য দিবস আজ

অনলাইন ডেস্ক;
  • প্রকাশিত: ১০ অক্টোবর ২০২১, ৯:৩৮ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ১ সপ্তাহ আগে
বিষন্নতার প্রতীকি ছবি

আজ ১০ অক্টোবর বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস। প্রতিটি মানুষের জন্য শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্য দুটোই ভালো থাকা প্রয়োজন। পৃথিবীর সব মানুষের মধ্যে মানসিক অসুখ নিয়ে সচেতনতা বাড়ানোর জন্য এ দিনটি পালন করা হয়। ১৯৯২ সালে প্রথমবার এই দিনটি পালন করা হয়। সেই থেকে প্রতি বছরই এই ১০ অক্টোবর দিনটিকে মানসিক স্বাস্থ্য দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

আমাদের সমাজে মানসিক অসুখ এখনো অনেকটাই ট্যাবু। এ কারণে মানুষ এ বিষয়টিকে এড়িয়ে চলে। যা কোনোভাবেই কাম্য নয়। মানুষ মানসিক সাস্থ্যের ব্যাপারে সচেতন হলে অনেক ধরণে অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়ানো সম্ভব।

শারীরিক অসুস্থতার কারণে মানুষের যেমন কর্মশক্তি হ্রাস পায় তেমনি মানসিক অবসাদগ্রস্ততা কর্মস্পৃহা কমিয়ে দেয়। তাই প্রতিটি মানুষের সুস্থ স্বাভাবিক জীবনের জন্য শারীরিক ও মানসিক সুস্থতা জরুরি।

দিবসটি উপলক্ষে পৃথক বাণী দিয়েছেন প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানসিক স্বাস্থ্যসেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে আরও বেশি মনোযোগী হতে সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, বর্তমানে করোনা মহামারির এই বৈশ্বিক পরিস্থিতিতে জনসাধারণের মানসিক স্বাস্থ্য মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। আক্রান্ত ব্যক্তি ছাড়াও পরিবারের সদস্য, সমাজের নারী, শিশু ও বৃদ্ধদের মানসিক স্বাস্থ্য হুমকির সম্মুখীন। এই পরিস্থিতিতে মানসিক স্বাস্থ্যসেবার পরিধি আরও বিস্তৃত করতে হবে।

দিবসটি উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ চার দিনের বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি বিভাগ, বাংলাদেশ ক্লিনিক্যাল সাইকোলজি সোসাইটি এবং ন্যাশনাল ট্রমা কাউন্সেলিং সেন্টার, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের যৌথ উদ্যোগে এ দিবসটি পালিত হবে।

কোভিড পরিস্থিতিতে প্রচুর মানুষের চাকরি হারিয়েছে। যার ফলে মানুষের মধ্যে হতাশা দেখা দিয়েছে। এই অবস্থায় নিজেদের মন ভাল রাখার জন্য একে অন্যের পাশে থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। কেউ মনের রোগে ভুগলে তার প্রতি সংবেদনশীল হওয়ার কথা বলছেন।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...