ঢাকা ০৫:৪৯ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘মুক্তিই’ খালেদা জিয়ার চিকিৎসা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট : ০৭:২০:৫৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ মে ২০২১
  • / 222

খাদ্য সহায়তা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। ছবি সংগৃহীত

::নিজস্ব প্রতিবেদক::

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসা হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। এজন্য তিনি খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করেছেন। এই মুহূর্তে মুক্তিই খালেদা জিয়ার বড় চিকিৎসা বলে মনে করেন এই চিকিৎসক।

শুক্রবার গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র কর্তৃক ‘করোনা মহামারিতে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে অসহায় মানুষ, মসজিদের মুয়াজ্জিন ও হকার শ্রমিক এবং বেকার সাংবাদিকদের পবিত্র ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে খাদ্য সহায়তা কর্মসূচি -২০২১’ বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসা হচ্ছে না। তার শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ। আর উনার চিকিৎসা হলো মুক্তি। মুক্তি দিলে উনি কোথায় চিকিৎসা করবেন, সেটা উনার স্বাধীনতা। আমাদের অতীতের প্রতিহিংসা ও ভুলগুলো স্মরণ না রেখে সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত নিতে হবে। মানসিক শক্তি না থাকলে সুস্থ হওয়া যায় না। সেই জন্য আমি আহ্বান করছি, ছাত্রদের পাশাপাশি খালেদা জিয়াকেও মুক্তি দেয়া হোক। উনার কিছু হয়ে গেলে পরে আক্ষেপ করতে হবে।

দেশে এখন ভয়াবহ অবস্থা বিরাজমান মন্তব্য করে তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতি খারাপ, মানুষের মুখে খাবার নেই। এর সাথে যোগ হয়েছে সরকারের ভুল নীতি। গণপরিবহন চলছে না, অথচ প্রাইভেট গাড়ি চলছে।

এসময় বিএনপিকে জনগণের সমস্যা নিয়ে রাস্তায় প্রতিবাদ করার আহ্বান জানান জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

ঈদে বাড়ি যেতে হলে মানুষের করোনা পরীক্ষা করে বাড়ি পাঠানো উচিত বলেও মন্তব্য করেন ডা. জাফরুল্লাহ।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র মানুষের জন্য কাজ করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এখানে প্রায় ১৫ দিনের খাবার আছে। লোক দেখানো দান করে লাভ নাই।

পরে দুপুর সাড়ে ১২টায় বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি এম আবদুল্লাহ ও মহাসচিব নুরুল আমিন রোকনের কাছে বেকার সাংবাদিকদের ঈদের খাদ্য উপহার হস্তান্তর করেন গনস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডা. মনজুর কাদির আহমেদ।

এছাড়া দুপুর ১টায় বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কাজল হাজরা ও ট্রেজারার মইন আহমেদের কাছে খাদ্য সামগ্রী তুলে দেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

‘মুক্তিই’ খালেদা জিয়ার চিকিৎসা

আপডেট : ০৭:২০:৫৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ মে ২০২১
::নিজস্ব প্রতিবেদক::

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসা হচ্ছে না বলে অভিযোগ করেছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। এজন্য তিনি খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করেছেন। এই মুহূর্তে মুক্তিই খালেদা জিয়ার বড় চিকিৎসা বলে মনে করেন এই চিকিৎসক।

শুক্রবার গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র কর্তৃক ‘করোনা মহামারিতে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে অসহায় মানুষ, মসজিদের মুয়াজ্জিন ও হকার শ্রমিক এবং বেকার সাংবাদিকদের পবিত্র ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে খাদ্য সহায়তা কর্মসূচি -২০২১’ বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসা হচ্ছে না। তার শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ। আর উনার চিকিৎসা হলো মুক্তি। মুক্তি দিলে উনি কোথায় চিকিৎসা করবেন, সেটা উনার স্বাধীনতা। আমাদের অতীতের প্রতিহিংসা ও ভুলগুলো স্মরণ না রেখে সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত নিতে হবে। মানসিক শক্তি না থাকলে সুস্থ হওয়া যায় না। সেই জন্য আমি আহ্বান করছি, ছাত্রদের পাশাপাশি খালেদা জিয়াকেও মুক্তি দেয়া হোক। উনার কিছু হয়ে গেলে পরে আক্ষেপ করতে হবে।

দেশে এখন ভয়াবহ অবস্থা বিরাজমান মন্তব্য করে তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতি খারাপ, মানুষের মুখে খাবার নেই। এর সাথে যোগ হয়েছে সরকারের ভুল নীতি। গণপরিবহন চলছে না, অথচ প্রাইভেট গাড়ি চলছে।

এসময় বিএনপিকে জনগণের সমস্যা নিয়ে রাস্তায় প্রতিবাদ করার আহ্বান জানান জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

ঈদে বাড়ি যেতে হলে মানুষের করোনা পরীক্ষা করে বাড়ি পাঠানো উচিত বলেও মন্তব্য করেন ডা. জাফরুল্লাহ।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র মানুষের জন্য কাজ করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এখানে প্রায় ১৫ দিনের খাবার আছে। লোক দেখানো দান করে লাভ নাই।

পরে দুপুর সাড়ে ১২টায় বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি এম আবদুল্লাহ ও মহাসচিব নুরুল আমিন রোকনের কাছে বেকার সাংবাদিকদের ঈদের খাদ্য উপহার হস্তান্তর করেন গনস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ডা. মনজুর কাদির আহমেদ।

এছাড়া দুপুর ১টায় বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কাজল হাজরা ও ট্রেজারার মইন আহমেদের কাছে খাদ্য সামগ্রী তুলে দেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু।