ঢাকা ০৫:৪৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মাগুরায় কৃষক হত্যায় তিনজনের মৃত্যুদণ্ড

মাগুরা প্রতিনিধি
  • আপডেট : ০৩:৫৯:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৬ জুন ২০২৩
  • / 96

মাগুরার শালিখা উপজেলায় কৃষক সাহেব আলীকে হত্যার দায়ে তিন আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। ‘পূর্ব শত্রুতা ও গ্রাম্য দলাদলির জের ধরে’২০০২ সালে সাহেব আলীকে হত্যা করা হয়।

মঙ্গলবার (৬ জুন) দুপুরে মাগুরা অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক ফারজানা ইয়াসমিন এ আদেশ দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- শালিখা উপজেলা কোটভাগ গ্রামের শামসুদ্দিন মণ্ডলের ছেলে আব্দুস সবুর, গহর মুন্সির ছেলে হাবিবুর ও ইমান উদ্দিনের ছেলে বুলু মিয়া।

মাগুরা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত পিপি ও রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মশিউর রহমান মামলার বিবরণ দিয়ে জানান, গ্রাম্য দলাদলি নিয়ে কোটভাগ গ্রামের আমজাদ আলী বিশ্বাসের ছেলে সাহেব আলীর সঙ্গে একই এলাকার কয়েকজনের বিরোধ ছিল। ২০০২ সালের ৮ মার্চ সকালে তিনি ফসলের মাঠে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হন। পথে কোটভাগ কমিউনিটি প্রাইমারি স্কুলের সামনে পৌঁছালে প্রতিপক্ষের লোকজন তাকে রামদা’, সড়কি, বল্লম, লোহার রড ও বাঁশ দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করেন।

এ ঘটনায় ওইদিন সাহেব আলীর বাবা আমজাদ আলী বিশ্বাস ৩৬ জনকে আসামি করে শালিখা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ে করেন। পুলিশ তদন্ত শেষে সব আসামির নামে আদালতে চার্জশিট দেয়। পরে উভয়পক্ষের সাক্ষী ও যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে অভিযোগ প্রমাণ হওয়ায় তিন আসামিকে সর্বোচ্চ সাজা দেন আদালত। আর অপরাধ প্রমাণ না হওয়ায় বাকি আসামিদের খালাস দেয়া হয়।

আসামিপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

মাগুরায় কৃষক হত্যায় তিনজনের মৃত্যুদণ্ড

আপডেট : ০৩:৫৯:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৬ জুন ২০২৩

মাগুরার শালিখা উপজেলায় কৃষক সাহেব আলীকে হত্যার দায়ে তিন আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। ‘পূর্ব শত্রুতা ও গ্রাম্য দলাদলির জের ধরে’২০০২ সালে সাহেব আলীকে হত্যা করা হয়।

মঙ্গলবার (৬ জুন) দুপুরে মাগুরা অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক ফারজানা ইয়াসমিন এ আদেশ দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- শালিখা উপজেলা কোটভাগ গ্রামের শামসুদ্দিন মণ্ডলের ছেলে আব্দুস সবুর, গহর মুন্সির ছেলে হাবিবুর ও ইমান উদ্দিনের ছেলে বুলু মিয়া।

মাগুরা জেলা ও দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত পিপি ও রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মশিউর রহমান মামলার বিবরণ দিয়ে জানান, গ্রাম্য দলাদলি নিয়ে কোটভাগ গ্রামের আমজাদ আলী বিশ্বাসের ছেলে সাহেব আলীর সঙ্গে একই এলাকার কয়েকজনের বিরোধ ছিল। ২০০২ সালের ৮ মার্চ সকালে তিনি ফসলের মাঠে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হন। পথে কোটভাগ কমিউনিটি প্রাইমারি স্কুলের সামনে পৌঁছালে প্রতিপক্ষের লোকজন তাকে রামদা’, সড়কি, বল্লম, লোহার রড ও বাঁশ দিয়ে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করেন।

এ ঘটনায় ওইদিন সাহেব আলীর বাবা আমজাদ আলী বিশ্বাস ৩৬ জনকে আসামি করে শালিখা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ে করেন। পুলিশ তদন্ত শেষে সব আসামির নামে আদালতে চার্জশিট দেয়। পরে উভয়পক্ষের সাক্ষী ও যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে অভিযোগ প্রমাণ হওয়ায় তিন আসামিকে সর্বোচ্চ সাজা দেন আদালত। আর অপরাধ প্রমাণ না হওয়ায় বাকি আসামিদের খালাস দেয়া হয়।

আসামিপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ।