প্রথম চালানে ৭৮ টন ৮৪০ কেজি ইলিশ গেলো ভারতে

যশোর প্রতিনিধি;
  • প্রকাশিত: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২:৩২ অপরাহ্ণ | আপডেট: ১ মাস আগে

ফাইল ছবি

ভারতে দুর্গাপূজা উপলক্ষে সরকারের অনুমোদন পাওয়া দুই হাজার ৮০ মেট্রিক টন রপ্তানির প্রথম চালান ৭৮ টন ৮৪০ কেজি ইলিশ ভারতে গেলো।

বুধবার সন্ধ্যা নাগাদ এই মাছ বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে ভারতে পাঠানো হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০১২ সালে বাংলাদেশ থেকে ভারতে ইলিশ মাছ রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। তবে এরপর বাংলাদেশ সরকার একাধিকবার ভারত সরকারকে শুভেচ্ছা উপহারস্বরূপ ইলিশ মাছ দিয়েছে। গত বছরের ১০ সেপ্টেম্বর এক হাজার ৮৭৫ মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানির অনুমোদন দেয় সরকার। এবার এর প্রায় দ্বিগুণ ইলিশ রপ্তানির অনুমোদন দেয়া হয়।

যদিও বেশ কয়েক বছরের মধ্যে এবারই বাংলাদেশের নদীতে সবচেয়ে কম ইলিশ ধরা পড়ছে। ফলে অভ্যন্তরীণ বাজারে ইলিশের দাম চড়া। তার ওপর ভারতে রপ্তানির সুযোগ দেয়ার খবরে বাজারেও এর নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে ইতিমধ্যে।

বেনাপোল স্থলবন্দর মৎস্য কোয়ারেনটাইন পরিদর্শক আসওয়াদুল ইসলাম বলেন, ইলিশ রপ্তানি নিষিদ্ধ হলেও দুর্গাপূজা উপলক্ষে এবার দুই হাজার ৮০ টন ইলিশ রপ্তানির অনুমোদন দেয় সরকার। এসব ইলিশ রপ্তানির অনুমতি পেয়েছে বাংলাদেশের ৫২টি প্রতিষ্ঠান। প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে ৪০ মেট্রিক টন ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দেয়া হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় বুধবার ইলিশের প্রথম চালান ৭৮ টন ৮৪০ কেজি ভারতে প্রবেশ করেছে। পর্যায়ক্রমে বাকি মাছ রপ্তানি হবে। আগামী ১০ অক্টোবরের মধ্যে ইলিশ রপ্তানির কাজ শেষ করতে হবে।

বেনাপোলের সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট ‘নিলা এন্টারপ্রাইজের’ প্রতিনিধি রুবাইত বলেন, এবার প্রতি কেজি ইলিশের রপ্তানি মূল্য ১০ মার্কিন ডলার। যা বাংলাদেশি টাকায় প্রতি কেজি ৮৫০ টাকা। ভারত ও বাংলাদেশ দুই দেশের কাস্টমস থেকে শুল্কমুক্ত সুবিধায় ইলিশের এ চালান ছাড় করা হবে।

ইলিশের রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান হলো খুলনার ‘সাউদার্ন ফুড লিমিটেড’, ঢাকার ‘ইউনিয়ন ভেঞ্চার, যশোরের ‘রহমান ইমপেক্স’ এবং পাবনার ‘সেভেন স্টার ফিস প্রসেসিং কোং’ নামের চারটি রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান।

বেনাপোল কাস্টম হাউজের কমিশনার মো. আজিজুর রহমান জানান, ইলিশ রপ্তানির প্রথম চালান আজ বুধবার বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতে গেছে। দ্রুত রপ্তানি করার জন্য কাস্টমসের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...