ঢাকা ১০:০৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সিজেএফবির সেরা প্রযোজকের পুরস্কার পেলেন কাজী রিটন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট : ১১:৫২:৪৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জানুয়ারী ২০২২
  • / 244

গত বিশ বছর ধরে টেলিভিশন নাটক ও সিনেমা প্রযোজনা করে চলেছেন কাজী রিটন। এযাবৎ প্রশংসিত হয়েছে তার প্রযোজিত অনেক কাজ। সেই ধারাবাহিকতায় ২০২০ সালে সেরা একক নাট হিসেবে পুরস্কার পেয়েছে তার প্রযোজিত ‘আপা’ নাটক, যেটি পরিচালনা করেছেন সকাল আহমেদ। গত ২৪ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের ‘হল অব ফেম’- এ সিজেএফবির আয়োজিত পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে প্রযোজক হিসেবে এই পুরস্কার গ্রহণ করেন কাজী রিটন।

পুরস্কার গ্রহণের পর তিনি তার বক্তব্যে বলেন, ‘প্রযোজকের উৎসাহই নাটক ও সিনেমাকে বাঁচিয়ে রাখে। আমি সবসময় মানসম্পন্ন কাজ করতে উৎসাহী। সিজেএফবি’র এই পদক পেয়ে আরও উৎসাহী হলাম। সামনেই দারুণ কিছু কাজ নিয়ে হাজির হচ্ছি।


অনলাইনে আজ বাংলাদেশের কনটেন্ট পৌঁছে যাচ্ছে সারা দুনিয়ার মানুষের কাছে। একটি দেশের রুচির পরিচায়ক এই নির্মাণগুলো। কাজেই শুধু ব্যবসায়িক নয় বরং নির্মাণের ক্ষেত্রে নান্দনিক দিকে লক্ষ্য রাখা আবশ্যক বলে আমি মনে করি।

কাজী রিটন প্রযোজিত উল্লেখযোগ্য কাজগুলোর মধ্যে আছে, ‘এম ইন লাইফ’, ‘পাটিগণিত’, ‘উনপাজুরে’, ‘অদৃশ্য দেয়াল’, ‘বিবাহ সংকট’, ‘অপরাধী হইলেও আমি তোর’, ‘পরের মেয়ে’, ‘সৎ মা’, ‘টম অ্যান্ড জেরি’, ‘ম্যাচ উইনার’, ‘ফ্রেন্ড বুক’, ‘সাইন্স এর মেয়ে আর্টসের ছেলে’।
২০২০ সালে পারফর্মিং মিডিয়াতে বিশেষ অবদান রাখার স্বীকৃতিস্বরূপ ২০টি ক্যাটাগরিতে সিজেএফবি অ্যাওয়ার্ড দেয়া হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

সিজেএফবির সেরা প্রযোজকের পুরস্কার পেলেন কাজী রিটন

আপডেট : ১১:৫২:৪৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জানুয়ারী ২০২২

গত বিশ বছর ধরে টেলিভিশন নাটক ও সিনেমা প্রযোজনা করে চলেছেন কাজী রিটন। এযাবৎ প্রশংসিত হয়েছে তার প্রযোজিত অনেক কাজ। সেই ধারাবাহিকতায় ২০২০ সালে সেরা একক নাট হিসেবে পুরস্কার পেয়েছে তার প্রযোজিত ‘আপা’ নাটক, যেটি পরিচালনা করেছেন সকাল আহমেদ। গত ২৪ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের ‘হল অব ফেম’- এ সিজেএফবির আয়োজিত পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে প্রযোজক হিসেবে এই পুরস্কার গ্রহণ করেন কাজী রিটন।

পুরস্কার গ্রহণের পর তিনি তার বক্তব্যে বলেন, ‘প্রযোজকের উৎসাহই নাটক ও সিনেমাকে বাঁচিয়ে রাখে। আমি সবসময় মানসম্পন্ন কাজ করতে উৎসাহী। সিজেএফবি’র এই পদক পেয়ে আরও উৎসাহী হলাম। সামনেই দারুণ কিছু কাজ নিয়ে হাজির হচ্ছি।


অনলাইনে আজ বাংলাদেশের কনটেন্ট পৌঁছে যাচ্ছে সারা দুনিয়ার মানুষের কাছে। একটি দেশের রুচির পরিচায়ক এই নির্মাণগুলো। কাজেই শুধু ব্যবসায়িক নয় বরং নির্মাণের ক্ষেত্রে নান্দনিক দিকে লক্ষ্য রাখা আবশ্যক বলে আমি মনে করি।

কাজী রিটন প্রযোজিত উল্লেখযোগ্য কাজগুলোর মধ্যে আছে, ‘এম ইন লাইফ’, ‘পাটিগণিত’, ‘উনপাজুরে’, ‘অদৃশ্য দেয়াল’, ‘বিবাহ সংকট’, ‘অপরাধী হইলেও আমি তোর’, ‘পরের মেয়ে’, ‘সৎ মা’, ‘টম অ্যান্ড জেরি’, ‘ম্যাচ উইনার’, ‘ফ্রেন্ড বুক’, ‘সাইন্স এর মেয়ে আর্টসের ছেলে’।
২০২০ সালে পারফর্মিং মিডিয়াতে বিশেষ অবদান রাখার স্বীকৃতিস্বরূপ ২০টি ক্যাটাগরিতে সিজেএফবি অ্যাওয়ার্ড দেয়া হয়েছে।