২৫ বছর পরেও স্মৃতিতে উজ্জ্বল সালমান শাহ্‌

বিনোদন ডেস্ক;
  • প্রকাশিত: ৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:২৮ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ১ মাস আগে
সালমান শাহ স্মরণে তারকারা

নব্বই দশকে ঢাকাই চলচ্চিত্রে ধূমকেতু​র মত আগমন ঘটা এক তারার নাম সালমান শাহ্‌। যিনি তার অভিনয়, স্টাইল দিয়ে বদলে দিয়েছিলেন বাংলা চলচ্চিত্রের প্রেক্ষাপট। সে সময় পেরিয়ে আজও দেশীয় চলচ্চিত্রের অন্যতম সুপারস্টার হয়ে আছেন তিনি। তাকে বাংলা চলচ্চিত্রের ‘মোস্ট ফ্যাশন আইকন’ বলা হয়। ফ্যাশনের দিক থেকে এই নায়ক ছিলেন কয়েক যুগ এগিয়ে। তার সময়ের চেয়ে কয়েক ধাপ এগিয়ে নিজেকে উপস্থাপন করার মত সচেতন ছিলেন এই সুপারস্টার। তাই তো কয়েক যুগ পেরিয়ে গেলেও তার মত হয়ে দেখাতে পারেন নি কেউ।

ক্যারিয়ারের অল্প সময়েই তিনি পেয়েছিলেন আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তা। ১৯৯৬ সালের আজকের এইদিনে সবাইকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে চলে যান নব্বই দশকের সবচেয়ে সুদর্শন এই তারকা।

মৃত্যুর ২৫ বছর পেরিয়ে গেলেও কমেনি তার জনপ্রিয়তা, বরং বেড়েই চলেছে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে। এত বছরেও কমে নি তার আবেদন। আজও ভক্তদের হৃদয়ে উজ্জ্বল হয়ে আছেন অমর এই নায়ক। পৃথিবী থেকে বিদায় নিলেও লাখো ভক্তের হৃদয়ে আজও বেঁচে আছেন তিনি। শুধু ভক্তই নয়, অনেক তারকারও তারকা সালমান শাহ্‌; একথা অকপটেই স্বীকার করেন এই প্রজন্মের নায়কেরা।

চলচ্চিত্রের মানুষেরা আজও বলেন, ‘মৃত্যুর ২৫ বছর হয়ে গেলেও আজও সালমান শাহের শূন্যস্থান কেউ পূরণ করতে পারেননি, কমেনি তার জনপ্রিয়তাও; বরং বেড়েই চলেছে।’

অমর এই নায়ককে আজকের এই দিনে স্মরণ করেছেন অনেকেই। অনেক তারকাই তাকে নিয়ে লিখেছেন তাদের মনের কথা, জানিয়েছেন শ্রদ্ধা। এবারের আয়োজনে থাকছেন সেই অংশগুলো।

শাকিব খান

একজন শিল্পীর মৃত্যুর পর ধীরে ধীরে তার অনুসারীরা ভুলতে শুরু করেন। তবে ক্ষণজন্মা নায়ক সালমান শাহ্‌র ক্ষেত্রে সেটা একেবারে বিপরীত! অকালে চলে যাওয়ার ২৫ বছর পরেও তার জনপ্রিয়তা আজও আকাশচুম্বী। ৯০ এর দশকে চলচ্চিত্রে সালমান শাহর আবির্ভাব তারুণ্যের উচ্ছ্বাস তৈরি করেছিল। ভক্তদের পাশাপাশি চলচ্চিত্রের মানুষরাও তার স্মৃতিগুলো এখনও লালন করেন। তাই আমার কাছে সালমান শাহ্‌ হলেন ভাটির আগে উজানের ঢেউ। তিনি বেঁচে থাকলে হয়তো চলচ্চিত্র মাধ্যমটি আরও বর্ণিল করতে পারতেন।

শিল্পীর ভালো কাজের জন্য অনুপ্রেরণার প্রয়োজন হয়। অনুপ্রেরণা থেকে শিল্পীরা নিজেদের সমৃদ্ধ করার চেষ্টা করেন। সালমান শাহর অভিনয় দেখে, তার সিনেমা দেখে আমারও সেই অনুপ্রেরণা হতো! একটা প্রজন্মের কাছে আইডলে পরিণত হয়েছিলেন সালমান শাহ্‌ নামের সেই পরশ পাথর, যার ছোঁয়ায় বাংলা চলচ্চিত্রে বিপ্লব ঘটেছিল।

তিনি আমাদের চলচ্চিত্রের এমন ধ্রুবতারা যিনি দূর আকাশে অবস্থান করেও আলোকিত করেন মানুষের হৃদয়। তার মৃত্যুদিন এলে তাই স্বভাবতই আমাদের মন খারাপ হয়ে যায়। আবার কিছুদিন পরেই আসে তার জন্মদিন; তখন আবার এই ভেবে ভালো লাগে যে সালমান শাহ স্বল্পায়ু হলেও অন্তত বাংলাদেশে জন্মেছিলেন সেটাই আমাদের সৌভাগ্য। ২৫ তম প্রয়াণ দিবসে প্রিয় নায়ক সালমান শাহ্‌কে স্মরণ করছি বিনম্র শ্রদ্ধায়। যেখানেই থাকুন ভালো থাকুন আমাদের সালমান শাহ্‌।

জিয়াউল ফারুক অপূর্ব

আজ প্রয়াত নায়ক সালমান শাহ্‌ – এর ২৫তম মৃত্যুুবার্ষিকী। কিংবদন্তীর কখনো মৃত্যু নেই৷ শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি এই কিংবদন্তী নায়ককে।

মেহ্জাবীন চৌধুরী

আজ অমর নায়ক সালমান শাহ্ এর ২৫ তম মৃত্যুবার্ষিকী। আজকের এই দিনে ক্ষণজন্মা এ নায়ককে শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি। মৃত্যুর ২৫ বছরেও যার আবেদন এতটুকুও ফুরোয়ই নি, তিনি-ই আমাদের সালমান শাহ্। তিনি ভক্ত ও দর্শকের হৃদয়ে বেঁচে থাকবেন হাজার হাজার বছর। Respect ❤️

আব্দুন নূর সজল

একটি অমর আত্মা…

নিরব হোসেন

৯০ দশকে আপনি চলচ্চিত্রে এসেছিলেন হ্যালীর ধূমকেতুর মতো! সিনেমাতে এলেন, দেখলেন, জয় করলেন। পর্দায় পোশাক-পরিচ্ছেদ, সংলাপ বলার ধরণ, অভিনয় দক্ষতা সবকিছু মিলিয়ে একজন দর্শক হিসেবে আমার মনে স্থান করে নিতে সময় লাগেনি। মৃত্যুর ২৫ বছর পরেও বাংলা সিনেমার সর্বসেরা ‘রোমান্টিক হিরো’ দের তালিকায় আপনার স্থান উপরে।

স্পষ্ট মনে পড়ে রাজবাড়ীর পাংশার নূপুর সিনেমা হলে জীবনে প্রথম আপনার ‘জীবন সংসার’ সিনেমা দেখেছিলাম। পর্দায় আপনাকে দেখে নায়ক হওয়ার ইচ্ছে সেদিনই প্রথম জেগেছিল। আহ কী সেই নায়ক, কী তার অভিনয়, কী তার স্টাইল।

২৫ তম মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করি। ভালো থাকুক আমাদের অমর নায়ক সালমান শাহ্‌।

আঞ্জুমান আরা শিল্পী

যেখানেই থাকো, তুমি অনেক ভালো থেকো, তোমার জন্য অনেক দোয়া। আল্লাহ তোমাকে জান্নাত দান করুন ।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...