গুচ্ছের ভর্তি পরীক্ষা পরবর্তী আবেদন ফি বাতিলের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক;
  • প্রকাশিত: ১০ নভেম্বর ২০২১, ১২:৪৫ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৩ সপ্তাহ আগে

ছবি সংগৃহীত

গুচ্ছভুক্ত ২০ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা পরবর্তী আবেদন ফি বাতিলের দাবি জানিয়েছেন আটটি বাম ধারার সংগঠন।

বুধবার বেলা সাড়ে ১২টায় আবেদন ফি’র প্রতিবাদে শাহবাগে সমাবেশ করেন সংগঠনগুলো। এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর কেন্টিন থেকে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে শাহবাগে আসেন তারা।

সমাবেশ শেষে গুচ্ছের ভর্তি পরীক্ষা পরবর্তী ফি বাতিল এবং শুচ্ছের ভর্তি পরীক্ষায় দ্বিতীয়বার অংশগ্রহণের সুযোগ রাখার দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন তারা।

সমাবেশে অপরিকল্পিত, অগোছালো প্রক্রিয়ায় ভর্তির কার্যক্রম বাতিল করে মেধাক্রমের আকারে ফলাফল প্রকাশ এবং মেধাক্রম ও শিক্ষার্থীদের চয়েস লিস্টের ভিত্তিতে ভর্তি নিশ্চিত করার আহ্বান জানান তারা।

সমাবেশে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক জাহিদ সুজন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি মাসুদ রানা, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীর সভাপতি ইকবাল কবির, বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি মিতু সরকারসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

স্মারকলিপিতে তারা বলেন, গুচ্ছভুক্ত বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় নিজ নিজ উদ্যোগে আবেদন ফি ধার্য করেছে। গুচ্ছভুক্ত যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তির আবেদন আহ্বান করেছে। এতে এক ইউনিটে আবেদন করতেই ৬৫০ টাকা লাগবে। বিজ্ঞানের চারটা ইউনিট আছে, চারটিতেই কেউ যদি আবেদন করতে চায়, তাহলে প্রয়োজন ২ হাজার ৬০০ টাকা। অথচ পরীক্ষা দেয়ার সময় ১২০০ টাকা নেয়া হয়েছিল। এখন আবার এই ফি কেনো? এভাবে যদি বাকি ১৯টি বিশ্ববিদ্যালয়ও আবেদন ফির তালিকা দিয়ে দেয়, তাহলে পরিস্থিতি কী দাঁড়াবে?

গুচ্ছের ফলাফলের অসংগতি তুলে ধরে মাসুদ নামে এক পরীক্ষার্থী বলেন, আজকে যারা দু’বার সংশোধন করেও গুচ্ছের সঠিক ফলাফল তৈরি করতে পরেনি, তারা কীভাবে এখন ২ হাজার টাকা নিয়ে এটা সংশোধন করবে? আমরা কীভাবে বিশ্বাস করবো যে এবারেও তারা শিক্ষার্থীদের পকেট লুটপাট করবে না?

সমাবেশে ইউজিসিকে হুশিয়ারি দিয়ে বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি মিতু সরকার বলেন, আজকে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) গুচ্ছের নামে শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ নিয়ে যে পায়তারা করছেন, তা বন্ধ করতে হবে। আমাদের যে ৩ দফা দাবি রয়েছে তা মেনে নিতে হবে। নয়তো আমরা সারাদেশে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের নিয়ে বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক দেবো।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...