ঢাকা ০৮:৫০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফ্লাইওভার থেকে পড়ে গুরুতর আহত জবি ছাত্র, আইসিইউতে ভর্তি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট : ১২:৫৯:১৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৮ অগাস্ট ২০২১
  • / 114
চট্টগ্রামের জিওএস মোড় থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) এক শিক্ষার্থীকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরবর্তীতে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হয়।

আহত শিক্ষার্থীর নাম আকবর হোসেন খান। তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৬-২০১৭ সেশনের ম্যানেজমেন্ট বিভাগের শিক্ষার্থী। শুক্রবার দিবাগত রাত ৯টার দিকে চট্টগ্রামের জিওএস মোড়ে ফ্লাইওভারের ওপর থেকে নিচে পড়া অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে পুলিশ।

হাসপাতালে সাথে থাকা জবির তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মোস্তাকিম রহমান জানান, ‘আকবর ভাইয়ের অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক। তিনি এখন আইসিইউতে আছেন। মেডিকেল বোর্ড গঠন করে চিকিৎসা কার্যক্রম চালানোর কথাবার্তা চলছে। ডাক্তাররা জানিয়েছেন, উন্নত চিকিৎসার জন্য অন্য কোথাও বা দেশের বাইরে ভালো কোনো জায়গায় নিতে পারলে ভালো হয়।’

চট্টগ্রামের খুলশী থানার ওসি জানান, একটি ছেলে চট্টগ্রাম জিওএস মোড় ফ্লাইওভার থেকে নিচে পড়ে যায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অজ্ঞান, মাথার পেছনে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হসপিটালের ভর্তি করে। আহত ব্যক্তি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী। তার পাশে তার বোন রয়েছেন। সে এখন হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন আছে।

তিনি আরো বলেন, এখনও কোনো মামলা হয়নি। তার অভিভাবক এসে অভিযোগ দায়ের করলে আমরা মামলা গ্রহণ করবো এবং আইনি প্রক্রিয়া শুরু করবো।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, আমি গতকাল রাতে ঘটনা জানার পর থেকেই খোঁজ-খবর রাখছি। তার অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক। তাকে আইসিইউতে রাখা হয়েছে। আশা করি দ্রুত সে সুস্থ হয়ে যাবে। খুলশী থানার ওসির সাথে আমার কথা হয়েছে। কিভাবে ঘটনাটি ঘটলো, তা তারা তদন্ত করে বের করবেন। আকবরের পরিবারকেও অভিযোগ দায়ের করার জন্য বলেছি, যাতে দ্রুত কারণ উদঘাটন করা যায়।

জানা যায়, আকবর হোসেন শুক্রবার সকালে ঢাকার সূত্রাপুরের একটি মেস থেকে শার্ট-প্যান্ট পড়ে, ব্যাগে ল্যাপটপ-ফোন নিয়ে বের হয়ে যান। যাওয়ার সময় তার রুমমেটরা কোথায় যাচ্ছেন জিজ্ঞাসা করলে তাদেরকে সঠিকভাবে কোনো তথ্য দেননি। পরবর্তীতে রুমমেটরা আকবরের সাথে যোগাযোগ করলে একবার গুলিস্তান, আরেকবার বসুন্ধরায় আছেন বলে জানান।

সর্বশেষ রাত ৮টা ৩৭ মিনিটের দিকে ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ১২ ব্যাচের শিক্ষার্থী এবং তার বন্ধু ফয়সালের সাথে কথা হয়, ফয়সালকে সে জানায় রাতেই সে বাসায় ফিরবে। এরপর রাত ৮.৫৩টার দিকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি ফয়সালকে ফোন করে জানায়, একটি ছেলে চট্টগ্রাম জিওএস মোড় ফ্লাইওভার থেকে নিচে পড়ে যায়, পরবর্তীতে পুলিশ এসে তাকে অজ্ঞান, মাথার পেছনে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

ট্যাগস :

ফ্লাইওভার থেকে পড়ে গুরুতর আহত জবি ছাত্র, আইসিইউতে ভর্তি

আপডেট : ১২:৫৯:১৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৮ অগাস্ট ২০২১
চট্টগ্রামের জিওএস মোড় থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) এক শিক্ষার্থীকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরবর্তীতে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে ভর্তি করা হয়।

আহত শিক্ষার্থীর নাম আকবর হোসেন খান। তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৬-২০১৭ সেশনের ম্যানেজমেন্ট বিভাগের শিক্ষার্থী। শুক্রবার দিবাগত রাত ৯টার দিকে চট্টগ্রামের জিওএস মোড়ে ফ্লাইওভারের ওপর থেকে নিচে পড়া অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে পুলিশ।

হাসপাতালে সাথে থাকা জবির তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মোস্তাকিম রহমান জানান, ‘আকবর ভাইয়ের অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক। তিনি এখন আইসিইউতে আছেন। মেডিকেল বোর্ড গঠন করে চিকিৎসা কার্যক্রম চালানোর কথাবার্তা চলছে। ডাক্তাররা জানিয়েছেন, উন্নত চিকিৎসার জন্য অন্য কোথাও বা দেশের বাইরে ভালো কোনো জায়গায় নিতে পারলে ভালো হয়।’

চট্টগ্রামের খুলশী থানার ওসি জানান, একটি ছেলে চট্টগ্রাম জিওএস মোড় ফ্লাইওভার থেকে নিচে পড়ে যায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে অজ্ঞান, মাথার পেছনে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হসপিটালের ভর্তি করে। আহত ব্যক্তি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী। তার পাশে তার বোন রয়েছেন। সে এখন হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন আছে।

তিনি আরো বলেন, এখনও কোনো মামলা হয়নি। তার অভিভাবক এসে অভিযোগ দায়ের করলে আমরা মামলা গ্রহণ করবো এবং আইনি প্রক্রিয়া শুরু করবো।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. মোস্তফা কামাল বলেন, আমি গতকাল রাতে ঘটনা জানার পর থেকেই খোঁজ-খবর রাখছি। তার অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক। তাকে আইসিইউতে রাখা হয়েছে। আশা করি দ্রুত সে সুস্থ হয়ে যাবে। খুলশী থানার ওসির সাথে আমার কথা হয়েছে। কিভাবে ঘটনাটি ঘটলো, তা তারা তদন্ত করে বের করবেন। আকবরের পরিবারকেও অভিযোগ দায়ের করার জন্য বলেছি, যাতে দ্রুত কারণ উদঘাটন করা যায়।

জানা যায়, আকবর হোসেন শুক্রবার সকালে ঢাকার সূত্রাপুরের একটি মেস থেকে শার্ট-প্যান্ট পড়ে, ব্যাগে ল্যাপটপ-ফোন নিয়ে বের হয়ে যান। যাওয়ার সময় তার রুমমেটরা কোথায় যাচ্ছেন জিজ্ঞাসা করলে তাদেরকে সঠিকভাবে কোনো তথ্য দেননি। পরবর্তীতে রুমমেটরা আকবরের সাথে যোগাযোগ করলে একবার গুলিস্তান, আরেকবার বসুন্ধরায় আছেন বলে জানান।

সর্বশেষ রাত ৮টা ৩৭ মিনিটের দিকে ম্যানেজমেন্ট বিভাগের ১২ ব্যাচের শিক্ষার্থী এবং তার বন্ধু ফয়সালের সাথে কথা হয়, ফয়সালকে সে জানায় রাতেই সে বাসায় ফিরবে। এরপর রাত ৮.৫৩টার দিকে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি ফয়সালকে ফোন করে জানায়, একটি ছেলে চট্টগ্রাম জিওএস মোড় ফ্লাইওভার থেকে নিচে পড়ে যায়, পরবর্তীতে পুলিশ এসে তাকে অজ্ঞান, মাথার পেছনে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেছে।